প্রযুক্তিভিডিও গেমস

নয়নাভিরাম যত গেমস : পর্ব ২

এ পর্ব মূলত PS4 গেম নিয়ে সাজানো হলেও PS3 এর প্লাটফর্মেরও কিছু গেমের কথা উল্লেখ করবো

গত পর্বে আমরা আলোচনা করেছিলাম পিসি প্লাটফর্মে Graphically Stunning গেমগুলো নিয়ে। আজ আমরা ২য় পর্বে আলোচনা করবো PlayStation 4 প্লাটফর্ম এ থাকা এযাবৎকালের সবচে Visually Stunning বা নয়নাভিরাম গেমগুলো নিয়ে। তবে এ পর্ব মূলত PS4 গেম নিয়ে সাজানো হলেও PS3 এর প্লাটফর্মেরও কিছু গেমের কথা উল্লেখ করবো আমরা যেগুলোর ব্যাপারে না বললেই নয়।

PS3 (Playstation Exclusive)

১. Uncharted 2 : Among Thieves (2009)

PS3 এর এক্সক্লুসিভ। বুঝতেই পারছেন এখনকার হিসেবে আহামরি কোনো গ্রাফিক্স নয়। কিন্তু UC2 ২০০৯ এর গেম হিসেবে খুব বেশি এডভান্স গ্রাফিক্স এর একটা PS3 এক্সক্লুসিভ গেম ছিল। শহরের টেক্সচার থেকে শুরু করে গাছাপালা আর বন জঙলের ভেজিটেশন কোয়ালিটি সময় হিসেব করলে চোখ জুড়িয়ে যাবার মত ছিল বটে! গেমটার ফিজিক্স ও ইফেক্টও বেশ ভালই ছিল। আর নাথান ড্রেইকের গেমপ্লে নিয়ে তো কিছু বলার নাই! গেমটি Sony Computer Entertainment থেকে প্রকাশিত এবং এর ডেভেলপার Naughty Dogs যাদের Naughty Engine 2 দ্বারা এটি নির্মিত।

২. Heavy Rain (2010)

এটা একটা “মন কেমন করা” জাতীয় এক গেম। সাই-ফাই আর ড্রামাটিক ঘরানার স্টোরেটেলিং এডভেঞ্চার জাতের এই গেমটির সবচে আকর্ষণীয় দিক হচ্ছে এর লাইটিং আর ফেশিয়াল এক্সপ্রেশনগুলো। Quantic Dream এর ডেভেলপমেন্ট এ Sony Computer Entertainment (SCE) থেকে পাবলিশড গেমটির গ্রাফিক্স সময়ের হিসেবে বেশ সুন্দর! আর গেমপ্লেও কেমন অদ্ভুত!
সবচে মজার কথা হল গেমটির ডেভলপমেন্ট কাজ শেষ করা হয়েছিল মাত্র তিন মাসে! ২০১৬ সালে সনি গেমটির PS4 ভার্সন রিলিজ করে।

৩. Uncharted 3 (2011)

UC3 এর কথা এর ভিজুয়াল এর কথা বলতে গেলে বলতে হয়, দারুণ! SCE থেকে পাবলিশড, Naughty Dog এর Naughty Engine 2 ইঞ্জিনের আপডেটেড ভার্সনে তৈরি UC3 তে আগের পর্বের তুলনায় টেক্সচারে আনা হয়েছিল যেমন ইম্প্রুভমেন্ট, পাশাপাশি এর লাইটিংও তখনকার হিসেবে ছিল বেশ আকর্ষণীয়! সাথে উন্নত করা হয়েছিল এর ফিজিক্স ইফেক্ট ও সিমুলেশনগুলো। সবমিলিয়ে আনচার্টেড 3 PS3 এর অন্যতম সুন্দর গেম!

৪. The Last of Us

যদি জিজ্ঞেস করা হয় PS3 এর সবচাইতে অবাক করা, ভিজ্যুয়ালি সুন্দর গেম কোনটা, তাহলে একবাক্যে বলতে হবে দ্য লাস্ট অফ আস এর কথা! অন্যান্য বেশকিছু PS3 এক্সক্লুসিভ গেমের মত এটাকেও PS4 এর জন্যে Remaster করা হলেও রিলিজ অনুযায়ী এটা PS3 এর গেম। Post Apocalyptic বা মহাধ্বংসের পরবর্তী সময়ের উপর ভিত্তি করে বানানো গেমটার স্টোরি যেমন দারুণ আর মনে গাথার মত, তেমনি এর গেমপ্লে উত্তেজনায় ভরা, তেমনি এর গ্রাফিক্স! লাইটিং, টেক্সচার, জিওম্যাট্রি, ভেজিটেশন সবকিছুই এই গেমের মন মাতানো! যাদের PS4 আছে তারাও গেমটার স্বাদ আস্বাদন করতে পারবেন এবং মিস দেয়া উচিত নয় বলেই আমি মনে করি! এই গেমটিও Naughty Dog এর তৈরি এগম আনচার্টেড এর মত এটাতেও Naughty Engine এর তৎকালীন সময়কার অতি উন্নত এক ভার্সন ব্যবহার করা হয়েছে।

৫. Beyond Two Souls

ভিজ্যুয়ালি খুব বেশি হাইপাররিয়েলিস্টিক না হলেও বিয়ন্ড টু সউলস ২০১৩ সালের PS3 গেমগুলোর মধ্যে অন্যতম সুন্দর একটি গেম। এর টেক্সচার, লাইটিং, মিউজিক মিলে একে ছিমছাম সুন্দর একটা গেমের রুপ দিয়েছে। পাশাপাশি এতে ব্যবহৃত মডেলগুলোর ফেসিয়াল এ্যানিমেশনও খুব ভাল ছিল। Naughty Dog নির্মিত PS3 এক্সক্লুসিভ গেমটি রিলিজের পর পরই বেশ ভাল ক্রিটিক রিভিউ পেয়েছে।

PS4 Exclusives
PS3 এর সাফল্যের পর সনি বাজারে ছেড়েছিল PlayStation 4 সিরিজের তিন মূল ধারার কনসোল, PS4, PS4 Pro আর PS4 এর লাইট ভার্সন PS4 Slim সেই সূত্রে তখন থেকে এখন অবধি এই তিন ভ্যারিয়েন্টের জন্যেই Sony Computer Entertainment রিলিজ করে যাচ্ছে একের পর এক তাদের এক্সক্লুসিভ গেম। যা তাদের পরবর্তী প্রজন্মের কনসোল না আসা পর্যন্ত চলবে এই প্লাটফর্মেই। যেহেতু তাদের এক প্রজন্মের গেম অন্য প্রজন্মের কনসোলে চলেনা, সেজন্যে তাদের আগের প্রজন্ম বা জেনারেশনের গেমগুলোকে নেক্সট জেন এর জন্যে রিমাস্টার করা লাগে। সাথে গ্রাফিক্সেও আনা হয় ইম্প্রুভমেন্ট। সেই ঐতিহ্য হয়তো PS4 থেকে এর পরবর্তী প্রজন্মেও স্থানান্তর হয়ে বহাল থাকবে।
সেটা থাকুক, আমরা তাহলে এখন জেনে নিই PS4 প্লাটফর্মের ২০১৩ সাল থেকে এখন অবধি Visually Stunning যে যে গেম আছে সেব্যাপারে।

১. Killzone Shadowfall (2013)

PS4 এক্সক্লুসিভ এর সূচনা হয় যে গেমগুলা দিয়ে, তার একটা হল Killzone Shadowfall. সাই-ফাই এ্যাকশন ঘরানার এই গেমটি Killzone সিরিজের ৬ষ্ঠ গেম, যার নির্মাতা বা ডেভেলপার Guerilla Games। PS4 এর ফার্স্ট ইম্প্রেশন গেম হিসেবে এর টেক্সচার, লাইটিং, ফেশিয়াল এনিমেশন ও রিগিং সবমিলিয়ে বেশ ভাল ছিল। সাথে ২০১৩ সালের গেম হিসেবে বিবেচনা করলে পিসির অনেক গ্র‍্যাফিক্যালি ডিমান্ডিং গেমের তুলনায় এটা PS4 এ ভালই পারফর্ম করেছে। গেমটি Decima Engine এ তৈরি।

২. Diveclub (2014)

মাথা নষ্ট করা গ্রাফিক্স যাকে বলে, ড্রাইভক্লাব PS4 এক্সক্লুসিভ জগতের তেমনি এক গেম। যেমন টেক্সচার, তেমন লাইটিং তেমনি অপটিমাইজেশন আর গেমপ্লে। সব মিলিয়ে আসলেই তাক লাগিয়ে দেয়ার মত একটা গেম ড্রাইভক্লাব। রিলিজের পর থেকেই গেমটি এর ভিজুয়াল ডিটেইলস আর গেমপ্লের জন্যে ব্যাপক সাড়া ফেলে দেয়। রেসিং ঘরানার এই গেমটির ভিজুয়াল কোয়ালিটিই শুধু ভাল না, সাথে এর ফিজিক্স আর ওয়েদার সিমুলেশনও অবাক করে দেয়ার মত! হঠাৎ করে গেমটা দেখলে মনে হবে যেন ফাস্ট এ্যান্ড ফিউরিয়াস মুভির কোনো দৃশ্য দেখছেন! গেমটির নির্মাতা Evolution Studio । তবে গ্রাফিক্যালি গেমটি প্রচুর সুনাম অর্জন করলেও অনলাইন ম্যাচে গেমপ্লের জন্যে সমালোচিত হয়েছে বেশ।

৩. Infamous Second Son (2014)

২০১৪ সালের আরেকটি মনোরম সুন্দর PS4 Exclusive গেম হল ইনিফেমাস সেকেন্ড সান। Infamous সিরিজের এই ৩য় গেমটি ভিজুয়াল দিক দিয়ে বেশ নজরকাড়া ছিল। এর সবচাইতে আকর্ষণীয় দিকগুলোর একটা ছিল পারফেক্ট টোনের ফেশিয়াল টেক্সচার, পার্টিকেল ইফেক্ট আর গেমটার লাইটিং। বড়সড় মাপের ওপেন ওয়ার্ল্ড এই গেমটির কাহিনীও ভাল লাগার মত। Sucker Punch ডেভলপমেন্ট টিমের নিজস্ব ইঞ্জিনে তৈরি এই গেমটির গ্রাফিক্স থেকে শুরু করে গেমপ্লে, সবকিছু অসাধারণ! গেমটির ক্যারেক্টার ও কাহিনী কমিক এডাপ্টেড।

৪. Until Down (2015)

হরর ঘরানার এই গেমটির ভিজুয়াল অনেক বেশি উন্নত না হলেও ২০১৫ সালের PS4 এক্সক্লুসিভ এর হিসেবে বেশ ভাল। Decima ইঞ্জিনে তৈরি গেমটির গ্রাফিক্স কোয়ালিটি বেশ ভাল, এ্যাম্বিয়েন্ট অক্লুসানের ব্যবহার ভালভাবে দেয়া হছে, ফলে শ্যাডোর Depth বেশ ভালভাবেই চোখে পড়ে। এছাড়া গেমটির সিমুলেশন, লাইটিং আর ফেসিয়াল রিগিং ও এ্যানিমেশনও বেশ চমকপ্রদ। হরর থিমটা বজায় রাখার জন্যে গেমটির লাইটিং সেটাপ খুব সতর্কতার সাথে করা হয়েছে। ফলে গোট গেমজুড়েই প্লেয়াররা একটা থ্রিল থ্রিল ভাব অনুভব করবেন। গেমটির নির্মাতা Supermassive Games ।

৫. The Order : 1886 (2015)

২০১৫ সালের গ্রাফিক্যালি আকর্ষণীয় আরো একটা PS4E গেম হল দ্য অর্ডার। ঐতিহাসিক পটভূমিতে কিছুটা বদলানো ইতিহাস নিয়ে তৈরি গেমটি গেমপ্লে ও কাহিনীর দিকে থেকে সমালোচকদের খুব একটা প্রশংসা অর্জন করতে না পারলেও ভিজুয়াল দিক থেকে গেমটি বেশ ভাল ছিল। গেমটিতে অনেকের পরিচিত এবং আমার নিজের অনেক পছন্দনীয় একজন ব্যক্তিত্ব Nikola Teslaকেও দেখা যাবে৷ Third Person Cover Type Shooting ঘরানার এই গেমটি তৈরি (Developer) করেছেন Ready at Dawn ও
SCE Santa Monica Studio একসাথে।

৬. Uncharted 4 : A Thief’s End (2016)

Sony Computer Entertainment তাদের PS4 এর জন্যে ২০১৬ সালে তেমন আহামরি কোনো গেমই না আনলেও UC4 ছিল ২০১৬ সালের সবচে সুন্দর গেম। এবং সম্ভবত তৎকালীন PS প্লাটফর্মের সবচে নয়নাভিরাম গেম! Naughty Dog এর Naughty Engine এর অত্যন্ত Improved ভার্সনে তৈরি UC4 ২০১৬ সালের PS4 জগতের এক গ্রাফিকাল মাস্টারপিস! যেমন ক্লথ টেক্সচার, তেমন এ্যাসেট, বিল্ডিং, টেরেইন আর ভেজিটেশন টেক্সচার রিফ্লেকশন কোয়ালিটি থেকে শুরু করে জিওম্যাট্রি, পার্টিকেল ইফেক্টস, ফিজিক্স, ফেসিয়াল রিগিং আর এনিমেশন সব সব দুর্দান্ত এই গেমটার। আর গেমপ্লে? যারা UC ফ্যান তাদের কিছু বলার নাই আর যারা UC সিরিজ খেলেননি কখনো তাদের বলবো কখনো সুযোগ পেলে মোটেও হাতছাড়া করবেন না। গেমটির কাহিনী আগের সেই চেনামুখ Nathan Drake কে নিয়েই এগিয়েছে। কাহিনীতে আছে টান টান উত্তেজনা। তেমনি উত্তেজনা আছে এর প্রতিমুহুর্তের গেমপ্লে তে। গেমটির ফিজিক্সও অবিশ্বাস্যরকমের ডিটেইল্ড। প্লেস্টেশন প্লেয়ারদের জন্য এটা একটা Must Play গেম।

৭. Uncharted : The Lost Legacy (2017)

Naughty Dog এর আরেক গ্রাফিক্যাল মাস্টারপিস! এটা আসলে আনচার্টেড সিরিজের মূলধারার (mainstream) গেম নয়, বরঞ্চ UC4 এর Standalone Expansion। কেউ DLC ভেবে ভুল করবেন না। DLC আর SAE এর মধ্যে পার্থক্য হল এগুলো মূল গেম ছাড়াই চালানো যায়। যেখানে DLC বা DownLoadable Contents মূল গেমের সাথে সংযুক্ত হয় বা থাকে। আনচার্টেড সিরিজের এটাই প্রথম গেম যার প্রোট্যাগনিস্ট ন্যাথান ড্রেক না, বরঞ্চ Chloe Frazer নামক একটা মেয়ে। এর কাহিনী যেমন দুর্দান্ত গেমপ্লেও তেম টান টান উত্তেজনায় ভরা। আর গ্রাফিক্স স্রেফ শ্বাসরুদ্ধকর! খেলতে গিয়ে মন চাইবে আগে তাকিয়েই থাকি। আগের ভার্সনগুলোর মত এটিও Naughty Engine এ তেই তৈরি।

৮. Horizon : Zero Dawn (2017)

হোরাইজন জিরো ডাউন, শুধু প্লেস্টেশন নয়, গোটা গেমিং জগতের এক অন্যন্য গ্রাফিক্যাল মাস্টারপিস এই গেম! Post Apocalyptic প্লটে বানানো সাই-ফাই ঘরানার এই গেম আপনাকে প্রতিমুহুর্তে মুগ্ধ করবে। বাধ্য করবে খেলা রেখে এর সুবিশাল ওপেন ওয়ার্ল্ড এর দিকে তাকিয়ে থাকতে। অকল্পনীয়রকমের কালারফুল এই গেমটির নির্মাতা Guerilla Games এবং এটি তৈরীতে ব্যবহৃত হয়েছে Decima ইঞ্জিন। গেমটির কাহিনী যেমন
মনে গেথে যাবার মত। তেমনি এর Environment, Gameplay সবকিছুই আপনাকে স্রেফ গেমটার প্রেমে ফেলে দিবে! যেমন লাইটিং তেমন টেক্সচার, ভেজিটেশন আর এনিমেশন! সেই সাথে গেমের একেকটা এ্যাসেট আর ক্যারেক্টার! বলার বাইরে। কেবলমাত্র গেমের প্রোট্যাগনিস্ট অ্যালয়কে দেখলেই তো আপনি তার প্রতি মুগ্ধ হয়ে যাবেন! বাকি সব বাদ!
গেমটি রিলিজের পর পরই সবদিক থেকে প্রচুর পরিমাণে পজেটিভ ক্রিটিক রিভিউ পেয়েছে। আর এটা এমন কিছুরই যোগ্য!

৯. Spiderman (2018)

E3 এর গেমপ্লের তুলনায় ইন গেম গ্রাফিক্স অনেককে হতাশ করলেও আমরা অনেকেই জানি E3 এর এটা পুরনো কারসাজি। তবে তাই বলে কিন্তু ভাববেন না যে গেমটার ইনগেম গ্রাফিক্স যেইসেই। এর গ্রাফিক্স, শহরের প্রতিটা বিল্ডিংয়ের টেক্সচার, লাইটিং আর রিফ্লেকশন কোয়ালিটি আপনাকে চুপ মেরে তাকিয়ে থাকতে বাধ্য করবে। তবে ক্যারেক্টারগুলোর টেক্সচার খানিক লো আর শ্যাডো কোয়ালিটি ২০১৮ এর গেম হিসেবে খানিক ভাল করা উচিত ছিল।কিন্তু সত্যি বলতে সেটাও চোখে পড়ার মত না। চোখে পড়ার মত হল গেমটার বিশাল ওপেন ওয়ার্ল্ড সিটি, স্পাইডির দুর্দান্ত গেমপ্লে, মুভ আর কম্ব্যাট মেকানিজম আর গোটা Environment এর নয়নাভিরাম সৌন্দর্য! মার্ভেল নিজেই Sonyর কাছে গিয়েছিল তাদের ইউনিভার্স থেকে কোনো একটা সুপারহিরো নিয়ে গেম বানাবার প্রস্তাব নিয়ে। পরবর্তীতে সনি আর গেমটির নির্মাতা Insomniac Games মিলেই সুপারহিরোদের মাঝ থেকে বাছাই করে স্পাইডারম্যানকে। গেমটি Insomniac Games এর নিজস্ব ইঞ্জিন Insomniac Engine এর অত্যন্ত উন্নত সংস্করণে নির্মিত। গেমটি প্রচুর ওপেন ওয়ার্ল্ড অপশনে ভরপুর।

১০. Detroit : Become Human (2018)

গেমটা খেললে আপনার মনে হবে, “একটা সাই-ফাই জনরার গেমসেও এত আবেগ থাকতে পারে?! শুধু সুন্দর কাহিনী নয়, মনভোলানো দারুণ পরিবেশ আর এর উপাদান, ডায়নামিক লাইটিং সব মিলিয়ে সুন্দর একটা গেম। গেমটির টেক্সচার আর ফেসিয়াল এনিমেশন কোয়ালিটিও অনেক ভাল করেছে। তবে মুভ এনিমেশন নিয়ে সমালোচকদের অনেকের খানিক নেগেটিভ রিভিউ আছে। গেমটির নির্মাতা Quantic Dream যারা এই গেমটির জন্যে সম্পূর্ণ নতুন এক গেম ইঞ্জিন তৈরি করে সেটায় গেমটি নির্মাণ করেছে। গেমটি এ্যাকশন ভিত্তিক নয়৷ বরঞ্চ মাল্টিপাল ডায়লগ অপশন ভিত্তিক।

১১. God Of War (2018)

২০১৮ সালের সবচে ব্যবসা সফল PS4E গেমগুলোর একটি। অদ্ভুতরকমের সুন্দর, মনভোলানো Environment, দারুণ অপটিমাইজেশন আর দুর্দান্ত গেমপ্লে। সেই সাথে গেমটির এ্যাসেট, টেক্সচার, লাইটিং, কালার গ্রেডিং সবমিলিয়ে গেমটিকে অকল্পনীয়রকমের সুন্দর রুপ দিয়েছে। বরাবরের মতই এবারের GOW তেও প্রোট্যাগনিস্ট বা প্লেয়ার ক্র‍্যাটোসই। তবে এটায় Kratos এর সাথে রয়েছে তার ছোট্ট আদুরে ছেলে আত্রিউস (Atreus) যা অনেকটা বলা বাহুল্য। গেমটি ওপেন ওয়ার্ল্ড না হলেও ফাস্ট ট্রাভেলিং এর অপশন রয়েছে এতে। নয়নাভিরাম সৌন্দর্য, দারুণ অপটিমাইজেশন, দুর্দান্ত সব কোয়েস্ট, সব মিলিয়ে বাপ – ছেলের এক মর্মস্পর্শী দারুণ অভিযান! গেমটি নির্মাতা SIE Santa Monica Studio, যারা গেমটিকে তাদের নিজস্ব (In-House) মডিফাইড ইঞ্জিনে তৈরি করেছে।

১২. Red Dead Redemption 2 (2018)

RDR2, RDR2, RDR2…!
এখন যেন কনসোল আর পিসি প্লাটফর্ম নির্বিশেষে সব গেমারদের মুখেই শুনবেন এই নাম! গ্রাফিক্যালি প্লেস্টেশনের ইতিহাসে সবচাইতে Stunning গেম এটি! এর গ্রাফিক্স দেখলে গ্রাফিক্সই দেখতে ইচ্ছে করবে।”গেম পরে খেলি, আগে দেখে নিই”, এমন একটা মনোভাব কাজ করবে মনের ভেতরে।আর গেমপ্লে? ওয়েস্টার্ন প্লটের কাহিনী যেহেতু, বুঝতেই পারছেন কোন স্টাইলের হতে পারে তা। ছোটবেলার অনেক কার্টুন, সিনেমা আর গেমের কথা মনে করিয়ে দিবে এটা। শুধু সুন্দর আর কালারফুল পরিবেশই না, গেমটিতে প্রচুর পরিমাণে খুটিনাটি ডিটেইলস দেয়া হয়েছে। সেইসাথে গেমটির AI বা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কোড এত উন্নত যে অপরিচিত ঘোড়াকে বাগে আনতে গেলে বা পাশে দাড়ালে খাবেন এক লাথি! এছাড়াও গুলি করলে গেমটিতে অন্য সব গেমের মত স্রেফ রক্তের ইফেক্ট না দিয়ে এতে মাংস উঠে যাওয়া এমনকি দেহ থেকে কোনো অঙ্গ আলাদা হয়ে পড়ার সিমুলেশনও দেয়া হয়েছে। তাছাড়া দেখতে হবেনা গেমটা কাদের? RockStar Games বরাবরই অপরাধজগত, আন্ডারওয়ার্ল্ড আর মারামারি কাটাকাটি নিয়েই গেম বানানোতে বেশি পরিচিত। আর সেই ধারাবাহিকতায় RDR2 এনে দিলো নতুন মাত্রা। তবে যেমন ওপেন ওয়ার্ল্ড অপশন দিলো তেমনি এ্যাকশনের উপর রয়েছে বহু রেস্ট্রিকশন আর ফলাফলও। তবমিলিয়ে RDR2 হল প্লেস্টেশন এক্সক্লুসিভ গেমের ইতিহাসে সবচাইতে নজরকাড়া গেম! গেমটি রিলিজের পর পরই গেমিং ইতিহাসের সব ইনস্ট্যান্ট সেল এর রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে বলা চলে। গেমটা এর পাবলিশার ও নির্মাতা Rockstar Games এর নিজস্ব ইঞ্জিন Rage ইঞ্জিনে নির্মিত।

এই ছিল আজকে আমাদের নয়নাভিরাম সব গেম নিয়ে করা ২য় পর্ব। যাতে আমরা আলোচনা করেছি PS3 ও PS4 এর সব এক্সক্লুসিভ গেম নিয়ে। আজকের আলোচনা আমাদের এখানেই শেষ। পরেরবার আবারো আসবো হয়তো ভিন্ন কিছু নিয়ে আপনাদের মাঝে। ততক্ষণ ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিজের খেয়াল রাখুন
আর বিজ্ঞানবর্তিকার সাথেই থাকুন…
হ্যাপি গেমিং
হ্যাপি রিডিং…

গত পর্বের লিংকঃ 

বিনোদন প্রযুক্তি – নয়নাভিরাম যত গেমস : পর্ব ১

আপনার মতামত লিখুন :

Back to top button
Close