মহাকাশ

কী হতো যদি সূর্য পৃথিবী থেকে আকারে ছোটো হতো?


সূর্য। হ্যাঁ আমাদের সৌরজগতের একমাত্র নক্ষত্র। আমরা জানি সূর্য পৃথিবী থেকে কতটা বিশাল আকৃতির। এতটাই বিশাল যে প্রায় ১.৩ মিলিয়ন পৃথিবীকে একসাথে করলে সূর্যের আয়তনের সমান হবে। কিন্তু এমনটা হলে কী হবে যে সূর্য আমাদের পৃথিবী থেকে ছোটো হয়ে গেল? শুনতে বোকা বোকা লাগলেও আমাদের জানা উচিত।

আসলে সূর্যও কিন্তু এত বিশাল নয়। একটা Supergiant Star এর সাথে যদি সূর্যের তুলনা করা হয় তবে সূর্যকে বিন্দুতেও খুঁজে পাওয়া দুষ্কর হবে! কিন্তু আমাদের পৃথিবীর সাপেক্ষে তা কত বিশাল! সূর্য এতটাই বিশাল সে হিসেবে যে এটি আমাদের সৌরজগতের প্রায় ৯৯ ভাগ ভরই বহন করে। পৃথিবী থেকে ছোটো দেখায় কারণ তা ১৫০ মিলিয়ন কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। ধরুন এবার কল্পনা করলাম যে সূর্য পৃথিবী থেকে ছোটো হয়ে গেল। কী হবে তাহলে? সেক্ষেত্রে নিশ্চিভাবেই বলা যাচ্ছে যে সৌরজগতে অভাবনীয় পরিবর্তন ঘটবে, পৃথিবী বসবাসের অযোগ্য তো হবেই এবং মজার ব্যাপার হচ্ছে সূর্য আর তখন নক্ষত্র থাকবেনা! এই মহাবিশ্বে বস্তুর আকৃতি যেমন নির্ভর করে তেমনই দূরত্বটাও তাঁর সাথে তাল মেলায়। এই সঠিক দূরত্বের জন্যও পৃথিবী মঙ্গল গ্রহের মতো ঠান্ডায় কম্পিত হয়না আবার শুক্রের মতো প্রচন্ড তাপে জর্জরিত হয়না। অর্থাৎ সব আকার আকৃতি, দূরত্ব দিয়ে আমরা একটা চরম সঠিক অবস্থানে আছি।

বলে রাখা ভালো একটা তারার ভর নির্ভর করে তাঁর রঙ এবং তাপমাত্রা। বড় তারা গুলো নীলাভ এবং প্রচন্ড উত্তপ্ত আর ছোটো তারা গুলো লাল এবং অপেক্ষাকৃত ঠান্ডা। আমাদের সূর্য সাদা তারা। মানে সুপার জায়ান্টের বা অতিকায় দানবীয় তারাও না আবার লোহিত বামন বা Red Dwarf এর মতো এত ছোটোও না। এটা বলে রাখার কারণ হলো আপনি ভাবতে পারেন সূর্যকে ছোটো করলেই তো তা লোহিত বামন হয়ে যাবে। কিন্তু না! নক্ষত্রের সংজ্ঞানুসারে সেটাই নক্ষত্র হবে হোক অতিকায় দানব বা লাল বামন যদি সেটার কোর বা কেন্দ্রে তাপ উৎপাদনকারী পারমানবিক ফিউশন বিক্রিয়া হয়। বুঝাতে পারলাম ব্যাপারটা? তাহলে একটা তারা কত ছোটো হতে পারে? বিজ্ঞানীরা খুব বেশি সংখ্যক লাল বামন তারা এখন পর্যন্ত পাননি৷ তবে যেটা সবচেয়ে ছোটো সেটার আয়তনও দশটা পৃথিবীর সমান। অর্থাৎ আমরা বুঝতে পারলাম আকার দশটা পৃথিবী থেকে ছোটো হলে সেটা আর তারা থাকবেনা বরং সেটা হবে একটা অন্ধকার ঠান্ডা মহাজাগতিক বস্তু।

যদি সূর্য আমাদের পৃথিবীর চাইতেও ছোটো হয়ে যায় তাহলে সেটাতে আর ফিউশন হবেনা, আলো উৎপন্ন করার মতো জ্বালানী থাকবেনা এবং তা সম্পূর্ণই শক্তিহীন হয়ে নিভে যাবে। আর সৌরজগতের গ্রহ উপগ্রহ যেহেতু সূর্যের আকর্ষণ বলয়ে ঘুরত তাঁরাও মাধ্যাকর্ষণের অভাবে কক্ষপথ থেকে বিচ্যুত হয়ে অজানায় হারিয়ে যাবে!

এইত গেল সূর্য ছোটো হলে কী হবে। এখন উল্টোটা দেখি, মানে যদি পৃথিবী বর্তমান সূর্য থেকে বড় হয়ে যায় তবে কী ঘটবে?
তাহলে পৃথিবীকে প্রায় সূর্য থেকে ৩৩০,০০০ গুণ বড় হতে হবে। বুঝতেই পারছেন মহাকর্ষ বলের অবস্থা কী হবে। প্রচন্ড আকর্ষণে আমাদের হাড়গোড় ধ্বংস হতে বেশি সময় নিবেনা। একটা গ্রহ যদি এতটাই বড় হয় তবে সে এমন তাপ উৎপন্ন করবে কেন্দ্রে(প্রচন্ড চাপে) যে সে নিজেই একটা তারা হয়ে যাবে! তখন ব্যাপারটা হয়ে যাবে দ্বৈত নাক্ষত্রিক ব্যবস্থার মত। একটা তারা আরেকটা তারাকে প্রদক্ষিণ করবে এবং অন্যান্য গ্রহগুলোও তাঁদের প্রদক্ষিণ করবে। অদ্ভুত না?
তবে বিজ্ঞানীরা যতগুলো Stellar System পেয়েছেন বেশিরভাগই দ্বৈত বা Binary or multiple star system। এমনকি অনেকগুলোতে বসবাসের মত পরিবেশও রয়েছে! আকাশে দুটো সূর্য দেখতে কেমন লাগবে তখন আপনার?..

Source: insh.world

আপনার মতামত লিখুন :

ট্যাগ
Back to top button
Close